প্রচণ্ড হৃদরোগ ঝুঁকিতে কাতারে কর্মরত অর্ধেক প্রবাসী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রচণ্ড হৃদরোগ ঝুঁকিতে কাতারে কর্মরত অর্ধেক প্রবাসী
প্রচণ্ড হৃদরোগ ঝুঁকিতে কাতারে কর্মরত অর্ধেক প্রবাসী

প্রচণ্ড হৃদরোগ ঝুঁকিতে রয়েছেন কাতারে অবস্থান করা প্রবাসীদের মধ্যে অর্ধেক প্রবাসী। বিশেষ করে গরমের চার মাস ঝুঁকির হার সবচেয়ে বেশি। জাতিসংঘের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে।

জাতিসংঘের করা এই রিপোর্ট নিয়ে ব্রিটিশ পত্রিকা গার্ডিয়ান তাদের এক প্রতিবেদনে বলেছে, গ্রীষ্মকালে তীব্র গরমের মধ্যে অবকাঠামো নির্মাণ শ্রমিকদের বাইরে কাজ করতে হয়। গরমে বেশিরভাগ শ্রমিক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন। এরই ভিত্তিতে জাতিসংঘ তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

গেল সপ্তাহে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ কাতারের কাছে প্রবাসীদের মৃত্যুর কারণ জানতে চেয়েছে। তারা বলেছে, প্রবাসী শ্রমিকরা প্রতিনিয়ত কেন মারা যাচ্ছে তার কারণ অনুসন্ধান করে প্রতিবেদন প্রকাশ করতে হবে। দেশটিতে আসন্ন বিশ্বকাপ উপলক্ষে ফুটবল স্টেডিয়াম নির্মাণ কাজে হাজার হাজার শ্রমিক বর্তমানে কাতারে কাজ করছেন।

কাতারের সঙ্গে জাতিসংঘের করা এক জরিপে দেখা গেছে, প্রবাসীদের এক-তৃতীয়াংশ হাইপারথার্মিয়া রোগে ভুগছেন। সাধারণত এই রোগীদের শরীরের তাপমাত্রা ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত উঠে যেতে পারে যা শরীরের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ।

জাতিসংঘের গবেষণায় দেখা যায়, যারা খুব সকাল থেকে কাজ শুরু করেন তারাও অতিরিক্ত গরমে বিভিন্ন রোগের ঝুঁকিতে রয়েছেন। তবে গত আগস্টে সরকার সকাল সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর ৩টা পর্যন্ত খোলা আকাশের নিচে কাজ করার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

প্রবাসী শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ফেয়ার/স্কয়ার প্রকল্পের পরিচালক ম্যাকগিয়ান গার্ডিয়ানকে বলেন, বাড়ির বাইরে যেসব শ্রমিক কাজ করেন তারা মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছেন।

জাতিসংঘের করা রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, গড়ে ৪০ ভাগ প্রবাসী কাজের শেষভাগে ডিহাইড্রেশনে ভোগেন। ফার্মে কাজ করা শ্রমিকদের ক্ষেত্রে এর হার ৭৪ শতাংশ। এমনটা হয়ে থাকে বিশুদ্ধ পানির অভাবের কারণে।