1. [email protected] : Mohiuddin Lasker : Mohiuddin Lasker
  2. [email protected] : Prodip Kumar Sarkar : Prodip Kumar Sarkar
  • E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫৯ অপরাহ্ন

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ৮ কোটি ২৭ লাখ ইউনিট পিসি বিক্রি

  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২১
  • ২৯ বার পঠিত

ডেস্ক রিপোর্ট :: চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ডেস্কটপ, নোটবুক ও ওয়ার্কস্টেশন বিক্রি বৃদ্ধিতে পিসির বৈশ্বিক চালান বছরওয়ারি ৫৫ শতাংশ বেড়ে ৮ কোটি ২৭ লাখ ইউনিটে দাঁড়িয়েছে। শীর্ষ পাঁচ পিসি বিক্রেতা কোম্পানিরই বিক্রিতে দুই অংকের প্রবৃদ্ধি হয়েছে। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান ক্যানালিসের সর্বশেষ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

মোবাইল ইন্টারনেটের যুগে গত কয়েক বছরে পিসি অনেকটাই পেছনে পড়েছিল। তবে করোনা পরিস্থিতিতে আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে পিসির বাজার। এ খাতের পর্যবেক্ষকরা বলছেন, লকডাউনে ঘরবন্দি থেকে অনেকেই বাড়ি, অফিসের কাজকর্ম, পড়াশোনা ও বিনোদনের জন্য পিসি বেছে নিয়েছেন।

করোনা মহামারীর কারণে বেশির ভাগ মানুষ ঘরে বসে কাজে অভ্যস্ত হওয়ায় গত প্রান্তিকে পিসি বিক্রি ২০১২ পরবর্তী সর্বোচ্চে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া ক্যানালিস বলছে, ২০২০ সালের পুরনো ক্রয়াদেশগুলোর ডেলিভারি সম্পন্ন হওয়ায়ও গত প্রান্তিকে বৈশ্বিক চালান বেড়েছে। বিশেষ করে নোটবুকের চালান লক্ষণীয়ভাবে বেড়েছে। এছাড়া ক্ষুদ্র ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো করোনা মহামারীর ধাক্কা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর ফলে পিসির চাহিদা বেড়েছে। গত প্রান্তিকে বিক্রির দিক থেকে শীর্ষে ছিল চীনের লেনোভো। তাদের বিক্রি বছরওয়ারি ৬১ শতাংশ বেড়ে ২ কোটি ৪ লাখ ইউনিটে দাঁড়িয়েছে। ক্রোমবুকের বিক্রি চাঙ্গায় এইচপির বিক্রি ৬৪ দশমিক ৪ শতাংশ বেড়ে ১ কোটি ৯২ লাখ ইউনিটে দাঁড়িয়েছে। গত বছরের চতুর্থ প্রান্তিকের তুলনায় চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ডেলের বাজার কিছুটা কমেছে। কিন্তু বছরওয়ারি ২৩ শতাংশ বিক্রি বেড়ে ১ কোটি ২৯ লাখ ইউনিট হওয়ায় ব্যক্তিগত কম্পিউটার বাজারে তৃতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে ডেল।

পিসির বাজারে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থান যথাক্রমে অ্যাপল ও অ্যাসারের। তাদের পিসি বিক্রি হয়েছে যথাক্রমে ৬৬ লাখ ও ৫৭ লাখ ইউনিট। ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে মোট পিসির চালানের ৭৮ দশমিক ৫ শতাংশ ছিল শীর্ষ পাঁচ ব্র্যান্ডের। ক্যাটাগরি ভিত্তিতে বিক্রি হওয়া মোট পিসির মধ্যে নোটবুক ও মোবাইল ওয়ার্কস্টেশন বিক্রি বছরওয়ারি ৭৯ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ কোটি ৭৮ লাখ ইউনিট। ডেস্কটপ ওয়ার্কস্টেশন বিক্রি বছরওয়ারি ৫ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১ কোটি ৪৮ লাখ ইউনিট।

ক্যানালিসের গবেষণা পরিচালক রুশাব দোশি বলেন, ইন্টারনাল হার্ডওয়্যার স্বল্পতায় পিসির গড় দাম বেড়েছে। ডিজাইনে নতুনত্ব নিয়ে আসার মাধ্যমে জোগান ও চাহিদা মোকাবেলা করার চেষ্টা করছে পিসি বিক্রেতা কোম্পানিগুলো। ব্যক্তিগত কম্পিউটার নিয়ে চিপ নির্মাতারাও বেশ আশাবাদী। এবং দীর্ঘমেয়াদি সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে ভবিষ্যত্ বিনিয়োগ বৃদ্ধির কথা ভাবছে তারা।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..